প্রধানমন্ত্রীর বাড়িতে যেতে পারলেও যেতে পারেনি নিজ বাড়ি সন্দ্বীপে !

সামছুউদ্দিন সামছু। অনলাইন ডেস্ক।
দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদানে সিংহভাগ পূরণ করে প্রবাসীরা। একজন প্রবাসীর জন্যে সবচেয়ে কষ্টকর বিষয় তখনই যখন সেই মানুষটি প্রবাস থেকে কর্মব্যস্ত সেড়ে নিজ দেশে এসে তার গ্রামের বাড়িতে যেতে না পারা। প্রবাস জীবন চলছে ২০ বছর ধরে। যার হাত ধরে আমেরিকাতে প্রায় ৫০ জন লোকের কর্মসংস্থান যার বেশীভাগই সন্দ্বীপের মানুষ। আর আমেরিকাতে একটি মানুষের কর্মসংস্থান মানে তার সাথে জড়িত অনেকগুলো মুখ।

দীর্ঘ ২০ বছর আমেরিকায় প্রবাস জীবণে যে মানুষটি অনেক গুলো মানুষের মুখে যিনি হাসি ফুটনো চেষ্টা করে যাচ্ছেন, যার হাত ধরে প্রত্যেকটি বছর সন্দ্বীপের বিভিন্ন পরিবারে ভাগ্য পরিবর্তন হয় আর পরিবর্তন হয় স্কুল, কলেজ, মসজিদ ও মাদ্রাসার কাঠামোর। উপবৃত্তি পায় গরীব মেধাবীরা, যার অর্থায়নে বিয়ে হয় গরীব মেয়েদের আর চিকিৎসা হয় আর্থিক সংকটে থাকা গরীবদের।
তারই হাত ধরে সন্দ্বীপে গড়ে উঠে আত্ম মানবতার সেবায় নিয়োজিত করার জন্যে আব্দুল কাদের ফাউন্ডেশন। সেই মানুষটি হলেন আমেরিকান প্রবাসী হাজী আব্দুল কাদের মিয়া।

নিজের কর্ম আর তৎপরতায় ইতিমধ্যে সাক্ষাৎ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে। প্রধানমন্ত্রীকে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টে প্রদান করেন পাঁচ লক্ষ টাকা। যেখানে উপস্থিত ছিলেন সন্দ্বীপের সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা, সন্দ্বীপ পৌরসভার মেয়র জাফর উল্লাহ টিটু।

প্রধানমন্ত্রীকে কেন টাকা দিলাম ? সেটা নাকি কাল হল হাজী আব্দুল কাদের মিয়ার!
গত ২৮শে ফেব্রুয়ারী ২০১৮ইং বুধবার চট্টগ্রাম হালিশহরস্থ একটি রেষ্টুরেন্টে মতবিনিময় করেন সন্দ্বীপ অনলাইন ও সোস্যাল এক্টিভিস্টদের সাথে সাক্ষাতে অভিযোগ করেন ১লা মার্চ ১৮ ইং তিনি সন্দ্বীপে যাওয়ার কথা, সেখানে সেনের হাট হাই উচ্চ বিদ্যালয়ে স্কুল হোস্টেলের উদ্বোধন ও কালাপানিয়া ইউনিয়নে মহিলা মাদ্রাসায় আর্থিক অনুদান দেওয়া সহ সন্দ্বীপের বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ১ কোটি টাকা অনুদান দেওয়ার কথা ছিলো। প্রস্তুতিও চূড়ান্ত কিন্তু শেষ পর্যন্ত যাওয়া হয়নি সন্দ্বীপে।

কারণ হিসাবে দোষলেন সন্দ্বীপের স্থানীয় সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতাকে। আব্দুল কাদের মিয়া অভিযোগ করেন সাংসদ মিতা বাউরিয়া ইউপি চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেন তিনি যাতে কাদের ফাউন্ডেশনের কার্যক্রমে সহযোগীতা না করেন এবং তার বাড়িতে সাংসদের অনুসারীরা অস্ত্র নিয়ে কাদের ফাউন্ডেশনের কার্যক্রমের বন্ধ রাখার হুমকি দিয়ে আসে বলে অভিযোগ করেন উপস্থিত অনলাইন ও সোস্যাল এক্টিভিস্টদের।

সন্দ্বীপে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি যাতে না ঘটে, সেই জন্যে তিনি এইবার সন্দ্বীপ যাওয়া থেকে বিরত থাকেন। তবে তিনি সন্দ্বীপ যেতে না পারলেও বিভিন্ন এলাকায় ওয়াদা দেয়া প্রায় ১ কোটি টাকার অনুদান যথা সময়ে পৌঁছে দিবেন বলে জানান।

এইদিকে এই বিষয়ে সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতার সাথে আলাপকালে তিনি জানান তিনি এই ধরণের কোন নির্দেশনা তিনি সন্দ্বীপে দেননি। তিনি বলেন কাদের সাহেব সন্দ্বীপে আর্থিক অনুদানে দুইজন মানুষও যদি উপকৃত হয় সেটি আমার সন্দ্বীপের মানুষের লাভ। আমার (মিতা) বাঁধা দেওয়ার প্রশ্ন আসেনা।
এই প্রসংগে বাউরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দীনকে মোবাইলে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন এটি তাদের রাজনৈতিক অভ্যন্তরিক বিষয়। এই বিষয়ে তিনি কিছু বলতে চাচ্ছেন না।

বাম রাজনীতির সাথে জড়িত ঢাকায় বসবাসরত সন্দ্বীপের সন্তান মনিরুল হুদা তার ফেইসবুক ওয়ালে লিখেন, আবদুল কাদের মিয়া, নিউইয়র্ক শহর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি প্রধান মন্ত্রীর সরকারী বাড়ীতে যেতে পারলেও এখন নাকি নিজ বাড়ী ‘ দুলালের গো বাড়ী, বাউরিয়া, সন্দ্বীপ’ যেতে পারছেন না! অভিযোগ নিজ গ্রামের সাংসদ নাকি তাকে বাড়ীতে যেতে বাধা দিচ্ছেন। এত ক্ষমতাধর ব্যাক্তিরা যদি দলীয় সাংসদের বাধার কারনে নিজ বাড়ীতে যেতে না পারেন তা হলে আমাদের মত চুনুপুটিদের অবস্থা বিবেচনা করুন। ব্যাক্তিগতভাবে আমি সাংসদ মাহাফুজুর রহমান মিতার রাজনীতির বিপক্ষের কিন্তু আমার দেখা সন্দ্বীপের সাংসদদের মধ্য মিতায় একমাত্র ব্যক্তি যিনি সামনা-সামনি নিজ সমালোচনা বিক্ষুব্দ হননা।এলাকায় ভদ্র, সজ্জন, হাসি-খুশি মানুষ হিসাবে সাংসদ পরিচিত, এমন ব্যাক্তির বিরুদ্ধে এজাতীয় অভিযোগে অবাক হচ্ছি।

আব্দুল কাদের মিয়া সন্দ্বীপ অনলাইন ও সোস্যাল এক্টিভিস্টদের বলেন, কেন সামাজিক কাজ বাঁধাপ্রাপ্ত হচ্ছে? তা আমার বোধগম্য নয়, কারো সাথে আমার কোন বিভেদ বা শত্রুতা নেই।
আমি জনপ্রতিনিধি হতে চাইনা এবং আগামীতে নির্বাচন করার ও কোন ইচ্ছে আমার নাই। আমি কারো প্রতিদ্বন্দী না।
আমি একজন প্রবাসী, প্রবাসে পরিশ্রম করে হালাল ইনকাম করি সে ইনকামের একটি অংশ আমি মানুষের কল্যাণে ব্যয় করছি এবং আগামীতেও করবো। আমি মানুষের জন্যে কাজ করতে চাই, কোন বিনিময় চাইনা। আপনাদের সবার সহযোগিতা চাই।

শামছুল আরেফিন শাকিলের সঞ্চালনায় সভায় বিভিন্ন ইস্যুতে মতামত প্রদান করেন- সন্দ্বীপ ইউনিক সোসাইটির মাহবুব, সন্দ্বীপ ইয়ূথ ক্লাবের শাহীন ইব্রাহীম, মহসিন কলেজ সন্দ্বীপ ছাত্র ফোরামের রনি, দ্বীপের স্বপ্নের শিমুল, সন্দ্বীপ টিভি’র খাদেমুল ইসলাম, দ্বীপের খবরের হান্নান তারেক , সন্দ্বীপ এসোসিয়েশন চট্টগ্রামের দেলোয়ার, সোনালী নিউজ ডটকমের আব্দুল হান্নান হীরা, সোনালী সন্দ্বীপের মোবারক হোসেন ভুঁইয়া, দৈনিক আজাদীর অপু ইবরাহিম , সন্দ্বীপ ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টস ফোরামের ইয়াসিন আরাফাত বাপ্পি, সন্দ্বীপ লিউ ক্লাবের আমজাদ হোসেন, বাংলা ভিশনের শরীফ উদ্দীন সন্দ্বীপী , দ্বীপের কথা’র শামসুদ্দীন সামছুসহ প্রমুখ।
প্রায় অর্ধশতাধিক অনলাইন এন্ড সোশ্যাল এক্টিভিস্ট এ সময় উপস্থিত ছিলেন


এ বিভাগের আরো খবর...
উড়িরচরে সাহায্যের নামে প্রতারণার অভিযোগ উড়িরচরে সাহায্যের নামে প্রতারণার অভিযোগ
নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার আশংকায় সন্দ্বীপের চৌকাতলী ৬ নং ওয়ার্ড নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার আশংকায় সন্দ্বীপের চৌকাতলী ৬ নং ওয়ার্ড
পিকনিক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত পিকনিক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত
চলো যাই বঙ্গোপসাগরের বুকে সন্দ্বীপে চলো যাই বঙ্গোপসাগরের বুকে সন্দ্বীপে
কালিগঞ্জে পাঁচ বছর বয়সের শিশু কন্যা ধর্ষণ যুবক আটক কালিগঞ্জে পাঁচ বছর বয়সের শিশু কন্যা ধর্ষণ যুবক আটক
কালিগঞ্জ পুলিশের অভিজানে তিনজন মাদকসেবী আটক কালিগঞ্জ পুলিশের অভিজানে তিনজন মাদকসেবী আটক
কালিগঙেও কুশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদে ভি জি এফ কার্ডের চাউল বিতারণ কালিগঙেও কুশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদে ভি জি এফ কার্ডের চাউল বিতারণ
পাঁচবিবিতে ১৪ দল জঙ্গীবাদ দমন ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মানব বন্ধন ও সমাবেশ করেছে পাঁচবিবিতে ১৪ দল জঙ্গীবাদ দমন ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মানব বন্ধন ও সমাবেশ করেছে
চিরিরবন্দরে শিশু ও মাতৃ মৃত্যু রোধে মাঠ পর্যায়ে মিডওয়াইফদের পরিচিতি সভা চিরিরবন্দরে শিশু ও মাতৃ মৃত্যু রোধে মাঠ পর্যায়ে মিডওয়াইফদের পরিচিতি সভা

প্রধানমন্ত্রীর বাড়িতে যেতে পারলেও যেতে পারেনি নিজ বাড়ি সন্দ্বীপে !
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)