গল্প–অসম প্রেম

---
অসম প্রেম
______________

রিচি,আমি তোমাকে ভালবাসি,সত্যিই ভালোবাসি।
তুমি কেন আমাকে ঘৃণা কর?
দেখো আমি দেখতে কুৎসিত হতে পারি কিন্তু টাকা পয়সা কোন কিছুর তো আর অভাব নেই।লোকজন আমাকে ভয় পায়।আমার বাবা শহরের একজন নামকরা রাজনীতিবিদ।বল রিচি,তুমি আমাকে ভালবাসবে কিনা,
শহরের অদূরে একটি নিষিদ্ধ পতিতালয়ের ঘরে সৈকত নামের ছেলেটি রিচির ভালবাসা পাবার জন্য মিনতি করছিল।তার চোখে নীলচে রংয়ের গ্লাস,বেশভূষা আড়ম্বর বেশ দামি।

তখন রাত্রি ১২টা।নির্জন শহর।রাস্তাঘাট প্রায় জনশূন্য। পতিতালয়ে নানা বয়সের মানুষের আনাগোনা। কেও কারো দিকে খেয়াল নেই,
দেখুন আপনারা বড়লোক ভদ্র ঘরের সন্তান। আপনাদের মত ছেলেদের আমার মত নিম্ন জাত মেয়ের করুণা ভিক্ষা করা কি ঠিক?
আমাদের এই পাপস্থানে এসে নিজের শরীরটাকে আর অপবিত্র করবেন না।আপনার বাবা মা যদি জানতে পারে আপনি প্রতিদিন এখানে আসেন তাহলে তারাও অনেক কষ্ট পাবেন।
আর তাদের অভিশাপে আপনার নরকেও স্থান হবেনা। আমি আপনার পায়ে পড়ি দয়া করে এখান থেকে চলে যান। আর কখনো আসবেন না।
রিচি শহরের নামকরা একজন উকিলের বিধবা মেয়ে। মা মারা যাবার পর ঘরে আসে সৎ মা।বয়সে রিচির চেয়ে ছোট, বেশ সুন্দরী, সংসারের চাবি ছিল তার হাতে।রিচির সব কিছুতেই তার ছিল বাধা। আর যখন উকিল সাহেব বাড়ি ফিরতেন তখন সৎ মা তাকে রিচির নামে যা ইচ্ছে তাই বলতো আর উকিল সাহেব অকপটে তাই বিশ্বাস করতেন। তার কথা শুনে উকিল সাহেব রিচিকে রীতিমত মানসিক নির্যাতন ও প্রহার করতেন।সৎ মা মাঝে মাঝে বলত পোড়ামুখী দুরে গিয়ে মরতে পারিস না,
বাবা মায়ের গলগ্রহ হয়ে থাকতে তোর লজ্বা করে না,
কখনো মুখ ফুটে কিছু বলতোনা।নিরবে সব সহে যেত, বিধবা হওয়াতে ও রাতদিন লোকের শত মন্দকথা শুনতেও হতো তাকে।
সুবর্ণময় এক বিকেলে সৎমায়ের তীব্র অকথ্য অপমান সহ্য করতে না পেরে ঘর থেকে চাকরির সন্ধানে বেরিয়ে পরে,
ভদ্রবেশী এক লোক চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে দালালের কাছে বিক্রি করে দেয়।সে থেকে এই বেশ্যাপাড়া তার শেষ আশ্রয়স্থল।
আজ তোমার কোন কথাই শুনবোনা, প্লিজ রিচি আমাকে ফিরিয়ে দিওনা।
সৈকত দামি গাড়ি হাকিয়ে রিচির কাছে প্রায়ই আসে।ও শুধু রিচির জন্যই এখানে আসে।সেজন্য দলনেত্রীকে ডাবল ঘুষ দিতে হতো।
দেখুন আপনি ভূল করছেন।আপনার এই ভালবাসার কোন মূল্য নেই আমার কাছে।আমি বেশ্যবৃত্তি করি,
এটা শুনার পর সৎইচ্ছায় কোন পুরুষ
আমাকে ভালোবাসার কথা নয়,
আপনার পরিবার যে মেয়ের সাথে আপনার বিয়ে ঠিক করেছে তার সাথে আমার আকাশ পাতাল ফারাক। সে রূপবতী, সতিসাদ্ধী, তার ১টা পরিচয় আছে।খামোখা কেন আমার পেছনে পড়ে আছেন?তার ভালবাসাটা পবিত্র।আর আমাদের ভালবাসাটা শুধু অভিনয়।আমরা পেটের দায়ে শরীর বেচে খাই,
তাই বলে মনুষত্ব বিকে দেয়নি,
রিচি,আমি ওকে কখনও ভালো বাসতে পারব না।আমি শুধু তোমাকেই ভালবাসি,একটু সদয় হও প্লিজ।বিপুল অর্থের বিনিময়ে হলেও আমি তোমাকে চাই।
আমি তোমাকে সমাজ সংসারে আবার সীকৃতি দিতে চাই,
আমি সমাজ সংসারকে ঘেন্না করি,
প্লিজ আপনি যেতে পারেন,
অই মেয়েটাকে বিয়ে করে সংসারি হোন সেটাই আপনার জন্য মঙ্গলময়,
আমি ওকে ঘৃনা করি।
কেন?
আপনি ওই মেয়েটিকে ঘৃণা করেন, এ কথা বলতে আপনার লজ্জা করেনা?
আপনি তাকে কি ঘৃণা করবেন,আপনার বর্তমান অবস্থার কথা জানলে সেই আপনাকে ঘৃণা করবে।
বিশ্বাস কর রিচি, সত্যিই সে একটা খারাপ মেয়ে।
ও তাই বুঝি,আপনি খুব ভাল মেয়ের কাছে এসেছেন তাইনা?
রিচি প্লিজ এসব ফালতু কথা বন্ধ কর।আমার সাথে নিষ্ঠুরের মত আচরন করোনা প্লিজ।
সৈকতের এমন পাগলামির জন্য রিচি একপর্যায়ে খুব রেগে যায়।সৈকত বোধহয় জানেনা সমাজ শুধু রিচির মত মেয়েদের গায়ে থু থু ছিটায়।
এটা প্রেম ভিক্ষার জায়গা নয়।আপনার প্রস্তাব আমি কখনো গ্রহণকরতে পারবোনা।আপনাদের মত ছেলেদের আমি বিশ্বাস করিনা।
রিচির চিৎকার চেঁচামেচি শুনে দলপতি এগিয়ে আসে,”ইয়ে লাড়কি দিমাগ ঠিক হে?”
হ্যাঁ দিদি।
যাও,এতো করে যখন ছেলেটা বলছে যাও,
তোমাকে বেশ দাম দিয়ে কিনে নিবে,
না,আমি যাবো না,
তুমি আমার মেয়ের মত রিচি।।
আমরাতো অভাবে বেশ্যাবৃত্তি করি কিন্তু যারা স্বভাবে করে তাদের কি সমাজ,সংসার হচ্ছে না,
দিদি,যে সংসার আমাকে ভিখারি বানিয়ে পথে বসালো,সে সংসার মোহবদ্ধ আর হতে চাইনা।
আমি বেশ্যা,হ্যাঁ আমি বেশ্যা, এটা আমার বড় পরিচয়,
দিদি,স্বস্নেহে হাত বুলিয়ে বলল,সর্দার জানলে আমাকে প্রহার করবে,
রোজই ছেলেটা এখানে আসে তোমার জন্য।
উফ,আপনি কেন বুঝতে পারছেন না।আচ্ছা আপনি যদি কখনো জানতে পারেন,
আপনার সন্তান কোন কলগার্লকে বিয়ে করেছে তখন আপনি তাকে কি করবেন?
গলাটিপে মেরে ফেলবো।
হা হা হা,আপনিওতো একই অপরাধ করতে যাচ্ছেন।
রিচি আমি অত কিছু বুঝিনা।আমি শুধু তোমাকেই চাই।
আচ্ছা আপনি যদি প্রতিনিয়ত শুনতে থাকেন,পতিতার গর্ভে আপনার জন্ম আজ আপনার এই অবস্থা।তখন আপনি কি করবেন?
সৈকত রিচির কথাগুলো শুনে কিছু না বলে নিঃশব্দে চলে যায়।
রিচি সৈকতের চলে যাওয়া একদৃষ্টে অবলোকন করে আর অবিরল চোখের জল ফেলে।।
_______
আজমিনা আক্তার রোদসী
কবি ও গল্পকার,টাঙ্গাইল।


এ বিভাগের আরো খবর...
গল্প .. সাবিত্রী – গল্প .. সাবিত্রী –
গল্প-এক রত্তি ভালবাসা গল্প-এক রত্তি ভালবাসা
‘সোনার খাঁচায় ময়না পাখি’ (২) ‘সোনার খাঁচায় ময়না পাখি’ (২)
‘সোনার খাঁচায় ময়না পাখি’ (১) ‘সোনার খাঁচায় ময়না পাখি’ (১)

গল্প–অসম প্রেম
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)